Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

 প্রতিষ্ঠাণের কার্যাবলী :

 

১। জরুরী নতুন পাসপোর্ট প্রদান (মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট)

২।সাধারণ নতুন পাসপোর্ট প্রদান (মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট)

৩।জরুরী নবায়ন ও সংযোজন (হাতে লেখা পাসপোর্ট এর জন্য প্রযোজ্য)

৪।সাধারণ জরুরী নবায়ন ও সংযোজন (হাতে লেখা পাসপোর্ট এর জন্য প্রযোজ্য)

৩। ভিসা প্রদান । (ভিসা একস্টেনশন ও নো ভিসা প্রদান) (মেশিন রিডেবল ভিসা)

 

 

মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট  এর পদ্ধতি :

 

 

  1. ১. প্রথমেই যেকোন পাসপোর্ট অফিস হতে বিনামূল্যে আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে অথবা www.dip.gov.bd এই ওয়েব সাইট হতে ফরম সংগ্রহ করা যাবে।ফরম পূরণ করার পূর্বে ফরমে লিখিত নির্দেশাবলী সঠিকভাবে অনুসরন করতে হবে।

 

২. দ্বিতীয় ধাপে আবেদন পত্র /ফরম পূরণ করার পর তা যথাযথ ব্যক্তি দ্বারা সত্যায়িত করতে হবে । (ফরমে উল্লেখিত নির্দেশ অনুসারে )

 

৩. জরুরী আবেদনের জন্য ৬৯০০( ভ্যাট প্রযোজ্য ) টাকা এবং সাধারন আবেদনের জন্য ৩৪৫০( ভ্যাট প্রযোজ্য ) টাকা সোনালী ব্যাংক এর কর্পোরেট/মহাজনপট্টি/স্টেশনরোড শাখায় জমা দিয়ে স্লিপ ফরমেরে উপরের অংশে গাম দিয়ে লাগাতে হবে ।

 

৪. জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্মনিবন্ধন সনদের ফটোকপি সত্যায়িত করে আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত করতে হবে । প্রযোজ্য ক্ষেত্রে যথাযথ কতৃপক্ষ কতৃক প্রদত্ত অনাপত্তিপত্র (এনওসি)সাথে দিতে হবে।

 

 

৫. বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসে উপস্থিত হয়ে আবেদন পত্র দাখিল করতে হবে।সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা আবেদনপত্র যাচাইবাছাই করে নির্দিষ্ট সময়ে অফিসের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত এমআরপি শাখায় পাঠাবেন। এখানে আবেদনকারীর তথ্যাদি, ছবি ও ডিজিটাল স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হবে।আবেদনকারীর এ সমস্থ কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর একটি রশিদ প্রদান করা হবে। যাতে সম্ভাব্য বিতরন তারিখ উল্লেখ করা থাকবে।

 

৬. বিতরন রশিদে উল্লেখিত সময়ে আবেদনকারী নিজে অফিসে উপস্থিত হয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহ করবেন। এছাড়াও আবেদনকারী তার আবেদনের অবস্থা (প্রসেস)মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে জানতে পারেন এবং পাসপোর্ট ইস্যুর বিষয় নিশ্চিত হয়ে পাসপোর্ট সংগ্রহের জন্য আসতে পারেন। উল্লেখ্য বিতরন রশিদে কোথায় এবং কিভাবে এসএমএস পাঠাতে  হবে তা লিখা থাকে।

 

 

কিছু সাধারন পরামর্শ

 

 

১.     আবেদনপ্রত্রে উলেস্নখিত তথ্যাদি ভালভাবে যাচাই বাছাই করে আবেদন পত্র জমা দিন। কেননা আবেদন পত্র জমার পর তথ্য সংশোধনের বিষয়টি খুবই জটিল।

 

২.    আবেদনপত্রে মিথ্যা তথ্য প্রদান বা তথ্য গোপন করা আইনত দন্ডনীয়।

 

৩.   পুলিশ ভেরিফিকেশন এর জন্য বর্তমান ঠিকানার ভিত্তিতে এক প্রস্থ আবেদন পত্র সংশিস্নষ্ট এসবি/ডিএসবি অফিসে প্রেরণ করা হয়। অনুকূল পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তির উপর পাসপোর্ট প্রাপ্তি নির্ভর করে।

 

৪.     যেসকল ব্যাক্তি পাসপোর্টের আবেদনপত্র সত্যায়িত করতে পারেন তাদের তালিকা পাসপোর্ট ফরমের শেষ পৃষ্ঠায় রয়েছে।

 

৫.    আবেদনপত্র জমা দেয়ার সময় অবশ্যই রঙ্গিন পোশাক পরিধান করতে হবে। সাদা বা হাল্কা রং এর পোশাক গ্রহনযোগ্য নয়।

 

৬.    আবেদনপত্র জমার পর পরবর্তী কার্যক্রম মোবাইল ফোনে এসএমএস প্রেরনের মাধ্যমে জানা যাবে এবং পাসপোর্ট ইস্যুর তারিখ এসএমএস এর মাধ্যমে জানানো হয়।

 

৭.  কোন কোন আবেদনকারী ঘরে বসে অনলাইনে পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করতে পারবেন । (www.passport.gov.bd)